চুয়াডাঙ্গা ০২:০৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ চুয়াডাঙ্গায় আন্ত‌জেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় ৬ সদস্য  আটক; চেতনা নাশক ঔষধ উদ্ধার দামুড়হুদার ডুগডুগি বাজারে বিট পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার ফয়জুর রহমান-অপরাধ দমনে পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন স্ত্রী‌কে সম্ভ্রমহা‌নি করার অপরা‌ধে ক‌বিরাজ‌কে জবাই ক‌রে হত্যা দামুড়হুদায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি টগর-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় জনগণের কথা চিন্তা করে দামুড়হুদায় মাশরুম চাষ সম্প্রসারণে মাঠ দিবসে সাবেক মহাপরিচালক ড. হামিদুর রহমান -চুয়াডাঙ্গার মাটি কৃষির ঘাটি দামুড়হুদায় জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা দামুড়হুদার আটকবর মোড়ে পূর্ববিরোধের জেরে ২জনকে কুপিয়ে, মারপিটে জখম করার অভিযোগ  দামুড়হুদার দুটি রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন কালে এমপি টগর -আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নমূখী সরকার দামুড়হুদায় বোরো ধান সংগ্রহের লটারী অনুষ্ঠিত 
ফেসবুকে ভাইরাল হতে গিয়ে সংসারে বিবাদ

ফেসবুকে ছবি-ভিডিও পোস্ট, স্বামী-শাশুড়ীর অসন্তোষ, গৃহবধূর আত্মহত্যা

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ছবি ও ভিডিও পোস্ট করা নিয়ে স্বামী-শাশুড়ি অসন্তোষ প্রকাশ করলে অভিমানে আত্মহত্যা করেছেন এক সন্তানের জননী খুশি খাতুন।

 

তার স্বামী-শাশুড়ি চাইতেন না নিজের স্ত্রী-পুত্রবধূর ছবি-ভিডিও অন্য কেউ দেখুক। এ নিয়ে স্বামী-শাশুড়ির সঙ্গে মনোমালিন্য হয় খুশির। এরই জের ধরে বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সকলের অগোচরে শ্বশুর বাড়ির নিজ ঘরে গলায় ফাঁস নেন খুশি। বিষয়টি টের পেয়ে শ্বশুর বাড়ির লোকজন ঝুলন্ত অবস্থায় খুশি খাতুনকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গা শহরতলী দৌলতদিয়াড় স্কুলপাড়ায়। পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারী) দুপু‌রে ময়নাতদন্ত শেষে খুশি খাতুনের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

খুশি খাতুন দৌলতদিয়াড় গ্রামের স্কুলপাড়ার ওবাইদুল ইসলামের স্ত্রী এবং আন্দুলবাড়িয়া গ্রামের সিদ্দিক আলীর মেয়ে।

 

নিহতর স্বামী ওবাইদুল ইসলাম জানান, বছর খানেক আগে বাড়িতে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ নিই। এরপরই আমার শাশুড়ী খুশিকে একটি স্মার্ট ফোন কিনে দেন। এই স্মার্ট ফোন দিয়ে গত ছয়মাস যাবত নিজের ফেসবুক আইডিতে নিজের তৈরি রিল ভিডিও এবং ছবি আপলোড দেয় খুশি। আমি নিষেধ করলেও শুনতো না। বিষয় আমার মাকে জানালে তার পুত্রবধূ খুশিকে নিষেধ করে। এ নিয়ে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়।

 

তিনি আরও বলেন, গত শনিবার আমার বড় ভাইয়ের জন্মদিন উপলক্ষে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে খুশি। আমার কাছে নগত কোন টাকা না থাকায় তাকে ঘুরতে নিয়ে যেতে পারিনি। এরপর থেকে আমার সঙ্গে কথা বলতো না খুশি। বুধবার আমি কাজে ছিলাম। আমার এলাকার পরিচিত একজন আমাকে দুপুরের দিকে ডেকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপরই জানতে পারি আমার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে। আমার সাড়ে ৩ বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

 

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেকেন্দার আলী বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে ধরেই খুশি খাতুন আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে জেনেছি। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হলে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

জনপ্রিয় সংবাদ

চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

ফেসবুকে ভাইরাল হতে গিয়ে সংসারে বিবাদ

ফেসবুকে ছবি-ভিডিও পোস্ট, স্বামী-শাশুড়ীর অসন্তোষ, গৃহবধূর আত্মহত্যা

প্রকাশ : ০৬:৩৩:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৪

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ছবি ও ভিডিও পোস্ট করা নিয়ে স্বামী-শাশুড়ি অসন্তোষ প্রকাশ করলে অভিমানে আত্মহত্যা করেছেন এক সন্তানের জননী খুশি খাতুন।

 

তার স্বামী-শাশুড়ি চাইতেন না নিজের স্ত্রী-পুত্রবধূর ছবি-ভিডিও অন্য কেউ দেখুক। এ নিয়ে স্বামী-শাশুড়ির সঙ্গে মনোমালিন্য হয় খুশির। এরই জের ধরে বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সকলের অগোচরে শ্বশুর বাড়ির নিজ ঘরে গলায় ফাঁস নেন খুশি। বিষয়টি টের পেয়ে শ্বশুর বাড়ির লোকজন ঝুলন্ত অবস্থায় খুশি খাতুনকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গা শহরতলী দৌলতদিয়াড় স্কুলপাড়ায়। পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারী) দুপু‌রে ময়নাতদন্ত শেষে খুশি খাতুনের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

খুশি খাতুন দৌলতদিয়াড় গ্রামের স্কুলপাড়ার ওবাইদুল ইসলামের স্ত্রী এবং আন্দুলবাড়িয়া গ্রামের সিদ্দিক আলীর মেয়ে।

 

নিহতর স্বামী ওবাইদুল ইসলাম জানান, বছর খানেক আগে বাড়িতে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ নিই। এরপরই আমার শাশুড়ী খুশিকে একটি স্মার্ট ফোন কিনে দেন। এই স্মার্ট ফোন দিয়ে গত ছয়মাস যাবত নিজের ফেসবুক আইডিতে নিজের তৈরি রিল ভিডিও এবং ছবি আপলোড দেয় খুশি। আমি নিষেধ করলেও শুনতো না। বিষয় আমার মাকে জানালে তার পুত্রবধূ খুশিকে নিষেধ করে। এ নিয়ে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়।

 

তিনি আরও বলেন, গত শনিবার আমার বড় ভাইয়ের জন্মদিন উপলক্ষে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে খুশি। আমার কাছে নগত কোন টাকা না থাকায় তাকে ঘুরতে নিয়ে যেতে পারিনি। এরপর থেকে আমার সঙ্গে কথা বলতো না খুশি। বুধবার আমি কাজে ছিলাম। আমার এলাকার পরিচিত একজন আমাকে দুপুরের দিকে ডেকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপরই জানতে পারি আমার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে। আমার সাড়ে ৩ বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

 

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেকেন্দার আলী বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে ধরেই খুশি খাতুন আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে জেনেছি। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হলে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।