চুয়াডাঙ্গা ০৫:১২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ চুয়াডাঙ্গায় আন্ত‌জেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় ৬ সদস্য  আটক; চেতনা নাশক ঔষধ উদ্ধার দামুড়হুদার ডুগডুগি বাজারে বিট পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার ফয়জুর রহমান-অপরাধ দমনে পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন স্ত্রী‌কে সম্ভ্রমহা‌নি করার অপরা‌ধে ক‌বিরাজ‌কে জবাই ক‌রে হত্যা দামুড়হুদায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি টগর-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় জনগণের কথা চিন্তা করে দামুড়হুদায় মাশরুম চাষ সম্প্রসারণে মাঠ দিবসে সাবেক মহাপরিচালক ড. হামিদুর রহমান -চুয়াডাঙ্গার মাটি কৃষির ঘাটি দামুড়হুদায় জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা দামুড়হুদার আটকবর মোড়ে পূর্ববিরোধের জেরে ২জনকে কুপিয়ে, মারপিটে জখম করার অভিযোগ  দামুড়হুদার দুটি রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন কালে এমপি টগর -আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নমূখী সরকার দামুড়হুদায় বোরো ধান সংগ্রহের লটারী অনুষ্ঠিত 

ঝিনাইদহে দাদিকে হত্যা করে বুকের ওপর বসে ছিল নাতি!

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে রশিয়া বেগম (৮২) নামে এক বৃদ্ধাকে হাতুড়িপেটা করে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার বলরামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মনির উদ্দিন মণ্ডলের স্ত্রী। হত্যাকাণ্ডে জড়িত নিহতের নাতি আব্দুল মান্নানকে আটক করেছে পুলিশ।

 

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আটক মান্নান সময়ে সময়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। ঘটনার দিন বিকেল থেকে তিনি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে মা-বাবাসহ বাড়ির লোকদের ওপর চড়াও হন। তার আচরণে ভীত হয়ে বাড়ি ছেড়ে পাশের গ্রামে চলে যান স্বজনরা। রাতে তিনি সবাইকে বাড়িতে ডেকে আনেন। পরে রাত আড়াইটার দিকে দাদির শোবার ঘরের দরজা ভেঙে তাঁকে ধরে উঠানে নিয়ে উপর্যুপরি হাতুড়িপেটা করেন। এ সময় তাঁকে প্লায়ার ও কুর্নি দিয়েও দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করেন।

 

আব্দুল মান্নানের বাবা ও নিহতের ছেলে ফজলুর রহমান বলেন, দিনের বেলায় ছেলের অস্বাভাবিক আচরণে তাঁরা বাড়ি ছেড়ে পাশের গ্রামে চলে যান। পরে রাতে ছেলে তাঁদের ডেকে আনে। তিনি ও তাঁর স্ত্রী ছেলের ভয়ে বাড়িতে না ঘুমিয়ে রাস্তায় হেঁটে বেড়াচ্ছিলেন। মায়ের চিৎকারে বাড়িতে গিয়ে তাঁকে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলে তাঁদের মারতে তাড়া করে। পরে ভয়ে তাঁরা দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে গ্রামবাসীকে খবর দেন।

 

তিনি আরো জানান, মাকে হত্যা করে তাঁর বুকের ওপর বসে ছিল মান্নান। তিনি দাবি করেন, তাঁর ছেলে মাঝে মাঝে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। তখন সে সবাইকে মারতে উদ্যত হয়। তবে দুই-এক দিন পরে আবার স্বাভাবিক হয়ে যায়। এর আগেও একবার সে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছিল।

হরিণাকুণ্ডু থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আক্তারুজ্জামান লিটন বলেন, মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আসামিকে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

ঝিনাইদহে দাদিকে হত্যা করে বুকের ওপর বসে ছিল নাতি!

প্রকাশ : ০৭:০০:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মার্চ ২০২৩

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে রশিয়া বেগম (৮২) নামে এক বৃদ্ধাকে হাতুড়িপেটা করে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার বলরামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মনির উদ্দিন মণ্ডলের স্ত্রী। হত্যাকাণ্ডে জড়িত নিহতের নাতি আব্দুল মান্নানকে আটক করেছে পুলিশ।

 

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আটক মান্নান সময়ে সময়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। ঘটনার দিন বিকেল থেকে তিনি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে মা-বাবাসহ বাড়ির লোকদের ওপর চড়াও হন। তার আচরণে ভীত হয়ে বাড়ি ছেড়ে পাশের গ্রামে চলে যান স্বজনরা। রাতে তিনি সবাইকে বাড়িতে ডেকে আনেন। পরে রাত আড়াইটার দিকে দাদির শোবার ঘরের দরজা ভেঙে তাঁকে ধরে উঠানে নিয়ে উপর্যুপরি হাতুড়িপেটা করেন। এ সময় তাঁকে প্লায়ার ও কুর্নি দিয়েও দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করেন।

 

আব্দুল মান্নানের বাবা ও নিহতের ছেলে ফজলুর রহমান বলেন, দিনের বেলায় ছেলের অস্বাভাবিক আচরণে তাঁরা বাড়ি ছেড়ে পাশের গ্রামে চলে যান। পরে রাতে ছেলে তাঁদের ডেকে আনে। তিনি ও তাঁর স্ত্রী ছেলের ভয়ে বাড়িতে না ঘুমিয়ে রাস্তায় হেঁটে বেড়াচ্ছিলেন। মায়ের চিৎকারে বাড়িতে গিয়ে তাঁকে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলে তাঁদের মারতে তাড়া করে। পরে ভয়ে তাঁরা দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে গ্রামবাসীকে খবর দেন।

 

তিনি আরো জানান, মাকে হত্যা করে তাঁর বুকের ওপর বসে ছিল মান্নান। তিনি দাবি করেন, তাঁর ছেলে মাঝে মাঝে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। তখন সে সবাইকে মারতে উদ্যত হয়। তবে দুই-এক দিন পরে আবার স্বাভাবিক হয়ে যায়। এর আগেও একবার সে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছিল।

হরিণাকুণ্ডু থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আক্তারুজ্জামান লিটন বলেন, মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আসামিকে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।