চুয়াডাঙ্গা ০১:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ চুয়াডাঙ্গায় আন্ত‌জেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় ৬ সদস্য  আটক; চেতনা নাশক ঔষধ উদ্ধার দামুড়হুদার ডুগডুগি বাজারে বিট পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার ফয়জুর রহমান-অপরাধ দমনে পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন স্ত্রী‌কে সম্ভ্রমহা‌নি করার অপরা‌ধে ক‌বিরাজ‌কে জবাই ক‌রে হত্যা দামুড়হুদায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি টগর-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় জনগণের কথা চিন্তা করে দামুড়হুদায় মাশরুম চাষ সম্প্রসারণে মাঠ দিবসে সাবেক মহাপরিচালক ড. হামিদুর রহমান -চুয়াডাঙ্গার মাটি কৃষির ঘাটি দামুড়হুদায় জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা দামুড়হুদার আটকবর মোড়ে পূর্ববিরোধের জেরে ২জনকে কুপিয়ে, মারপিটে জখম করার অভিযোগ  দামুড়হুদার দুটি রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন কালে এমপি টগর -আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নমূখী সরকার দামুড়হুদায় বোরো ধান সংগ্রহের লটারী অনুষ্ঠিত 

রাজধানীতে অফিস পার্টিতে মদ্যপানে তরুণীর মৃত্যু, গ্রেফতার ৪

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ‘থিংকিং ক্র্যাফট’ নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে মদ্যপানে প্রাণ গেলো এক তরুণীর। নিহতের নাম মাহফুজা খাতুন (২২)। তিনি লালমাটিয়া ন্যাশনাল কলেজ অব হোম ইকোনমিক্স কলেজে টেক্সটাইল বিভাগে তৃতীয় বর্ষে পড়াশোনার পাশাপাশি ওই প্রতিষ্ঠানটিতে চাকরি করতেন।

 

লালমাটিয়াতেই একটি ছাত্রী হোস্টেলে থাকতেন ওই শিক্ষার্থী।

 

এ ঘটনায় শনিবার (১৭ জুন) তরুণীর বাবা বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় মামলা দায়ের করলে ‘থিংকিং ক্র্যাফট’র মালিক সাফওয়ান বিন মোয়াজ্জেমসহ চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে দুজন নারী সহকর্মীও রয়েছেন। শনিবার রাতে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি বলেন, তরুণী যে প্রতিষ্ঠানটিতে চাকরি করতেন, সেটির বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান ছিল গত বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে রাতে অফিস পার্টি ছিল। সেখানে বিভিন্ন ধরনের খাবারের পাশাপাশি মদও ছিল। ওই তরুণী মদ্যপান করেছিলেন বলে তার সহকর্মীরা জানিয়েছেন। পার্টি শেষে শুক্রবার ভোরে হোস্টেলে ফেরেন ওই তরুণী।

 

কিন্তু কিছু সময় পরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সহকর্মীরা বিভিন্নভাবে তাকে সুস্থ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

খবর পেয়ে শুক্রবার রাতেই মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে জানান ওসি আজাদ। তিনি বলেন, কী কারণে মৃত্যু হয়েছে, তাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না, সে ব্যাপারে জানতে মরদেহ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

 

এ ঘটনায় তরুণীর বাবা একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় তিনি তুরাজ, সাফয়ান বিন মোয়াজ্জেম, মো. রানা, ঐশী, অমি চক্রবর্তী, তানজিলা জান্নাত ও তানজু নামে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ও কর্মচারীদের আসামি করেছেন। পরে পুলিশ ওই প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে মদ ও বিয়ারের বোতল উদ্ধার করে এবং আসামিদের মধ্যে চারজনকে গ্রেফতার করে।

 

প্রতিষ্ঠানটির আরও তিনজন মালিক রয়েছেন, যারা এ ঘটনার পর থেকে পলাতক।

জনপ্রিয় সংবাদ

চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

রাজধানীতে অফিস পার্টিতে মদ্যপানে তরুণীর মৃত্যু, গ্রেফতার ৪

প্রকাশ : ০৭:৪২:৩০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ‘থিংকিং ক্র্যাফট’ নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে মদ্যপানে প্রাণ গেলো এক তরুণীর। নিহতের নাম মাহফুজা খাতুন (২২)। তিনি লালমাটিয়া ন্যাশনাল কলেজ অব হোম ইকোনমিক্স কলেজে টেক্সটাইল বিভাগে তৃতীয় বর্ষে পড়াশোনার পাশাপাশি ওই প্রতিষ্ঠানটিতে চাকরি করতেন।

 

লালমাটিয়াতেই একটি ছাত্রী হোস্টেলে থাকতেন ওই শিক্ষার্থী।

 

এ ঘটনায় শনিবার (১৭ জুন) তরুণীর বাবা বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় মামলা দায়ের করলে ‘থিংকিং ক্র্যাফট’র মালিক সাফওয়ান বিন মোয়াজ্জেমসহ চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে দুজন নারী সহকর্মীও রয়েছেন। শনিবার রাতে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি বলেন, তরুণী যে প্রতিষ্ঠানটিতে চাকরি করতেন, সেটির বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান ছিল গত বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে রাতে অফিস পার্টি ছিল। সেখানে বিভিন্ন ধরনের খাবারের পাশাপাশি মদও ছিল। ওই তরুণী মদ্যপান করেছিলেন বলে তার সহকর্মীরা জানিয়েছেন। পার্টি শেষে শুক্রবার ভোরে হোস্টেলে ফেরেন ওই তরুণী।

 

কিন্তু কিছু সময় পরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সহকর্মীরা বিভিন্নভাবে তাকে সুস্থ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

খবর পেয়ে শুক্রবার রাতেই মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে জানান ওসি আজাদ। তিনি বলেন, কী কারণে মৃত্যু হয়েছে, তাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না, সে ব্যাপারে জানতে মরদেহ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

 

এ ঘটনায় তরুণীর বাবা একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় তিনি তুরাজ, সাফয়ান বিন মোয়াজ্জেম, মো. রানা, ঐশী, অমি চক্রবর্তী, তানজিলা জান্নাত ও তানজু নামে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ও কর্মচারীদের আসামি করেছেন। পরে পুলিশ ওই প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে মদ ও বিয়ারের বোতল উদ্ধার করে এবং আসামিদের মধ্যে চারজনকে গ্রেফতার করে।

 

প্রতিষ্ঠানটির আরও তিনজন মালিক রয়েছেন, যারা এ ঘটনার পর থেকে পলাতক।