চুয়াডাঙ্গা ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ চুয়াডাঙ্গায় আন্ত‌জেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় ৬ সদস্য  আটক; চেতনা নাশক ঔষধ উদ্ধার দামুড়হুদার ডুগডুগি বাজারে বিট পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার ফয়জুর রহমান-অপরাধ দমনে পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন স্ত্রী‌কে সম্ভ্রমহা‌নি করার অপরা‌ধে ক‌বিরাজ‌কে জবাই ক‌রে হত্যা দামুড়হুদায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি টগর-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় জনগণের কথা চিন্তা করে দামুড়হুদায় মাশরুম চাষ সম্প্রসারণে মাঠ দিবসে সাবেক মহাপরিচালক ড. হামিদুর রহমান -চুয়াডাঙ্গার মাটি কৃষির ঘাটি দামুড়হুদায় জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা দামুড়হুদার আটকবর মোড়ে পূর্ববিরোধের জেরে ২জনকে কুপিয়ে, মারপিটে জখম করার অভিযোগ  দামুড়হুদার দুটি রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন কালে এমপি টগর -আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নমূখী সরকার দামুড়হুদায় বোরো ধান সংগ্রহের লটারী অনুষ্ঠিত 

বাগেরহাটের চুরি হওয়া আড়াই মাসের শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় কৃষক দম্পতির ঘর থেকে চুরি হওয়া আড়াই মাসের শিশুসন্তান সাজিদ হাসান ফারাজীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 

শুক্রবার (১৭ মার্চ) গভীর রাতে খুলনা শহরের মিয়াপাড়া এলাকায় রাস্তার পাশের একটি ব্যাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরে শিশুটিকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে খুলনা সদর থানা পুলিশ।

এর আগে শুক্রবার ভোরে উপজেলার জাড়িয়া-মাইট কুমড়া এলাকায় আবু সাঈদ ফারাজী ও সুমি খাতুন দম্পতির ঘরে এ চুরির ঘটনা ঘটে।উদ্ধার হওয়া শিশু সাজিদ হাসান ফারাজী ওই এলাকার কৃষক আবু সাঈদ ফারাজী ও মৌসুমি খাতুন দম্পতির ছেলে।

 

 

পুলিশ জানায়, অপরাধীরা ব্যাগের মধ্যে শিশুটিকে রেখে চলে যায়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। সন্তানকে ফিরে পেয়ে খুশি বাবা-মাসহ এলাকাবাসী। তবে সন্তান চুরির সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত এবং আটক করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।
শিশু সাজিদের মা মৌসুমি খাতুন বলেন, মনে হচ্ছিল আমার বুকের মধ্যে কি যেন নেই। পরানডা এখনই বের হয়ে যাবে। সারাদিন শুধু খাঁ খাঁ করেছে আমার বুক। আমার বাজানকে পেয়ে মনে হচ্ছে, আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছি। সব কষ্ট ভুলে গেছি।

 

শিশুটির বাবা কৃষক আবু সাঈদ ফারাজী বলেন, আমার সন্তানকে ফিরে পেয়েছি, এটাই শান্তি। তবে চুরির সঙ্গে যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান বাবা ফারাজী।

 

বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান সমন্বয়ক পুলিশ পরিদর্শক এসএম আশরাফুল আলম বলেন, শিশু চুরির খবর পাওয়ার পর থেকে পুলিশ অভিযান শুরু করে। পুলিশের কঠোর তৎপরতায় অপরাধীরা শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যায়। আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। চুরির সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত ও আইনের আওতায় আনতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

বাগেরহাটের চুরি হওয়া আড়াই মাসের শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

প্রকাশ : ০২:৪২:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় কৃষক দম্পতির ঘর থেকে চুরি হওয়া আড়াই মাসের শিশুসন্তান সাজিদ হাসান ফারাজীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 

শুক্রবার (১৭ মার্চ) গভীর রাতে খুলনা শহরের মিয়াপাড়া এলাকায় রাস্তার পাশের একটি ব্যাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরে শিশুটিকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে খুলনা সদর থানা পুলিশ।

এর আগে শুক্রবার ভোরে উপজেলার জাড়িয়া-মাইট কুমড়া এলাকায় আবু সাঈদ ফারাজী ও সুমি খাতুন দম্পতির ঘরে এ চুরির ঘটনা ঘটে।উদ্ধার হওয়া শিশু সাজিদ হাসান ফারাজী ওই এলাকার কৃষক আবু সাঈদ ফারাজী ও মৌসুমি খাতুন দম্পতির ছেলে।

 

 

পুলিশ জানায়, অপরাধীরা ব্যাগের মধ্যে শিশুটিকে রেখে চলে যায়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। সন্তানকে ফিরে পেয়ে খুশি বাবা-মাসহ এলাকাবাসী। তবে সন্তান চুরির সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত এবং আটক করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।
শিশু সাজিদের মা মৌসুমি খাতুন বলেন, মনে হচ্ছিল আমার বুকের মধ্যে কি যেন নেই। পরানডা এখনই বের হয়ে যাবে। সারাদিন শুধু খাঁ খাঁ করেছে আমার বুক। আমার বাজানকে পেয়ে মনে হচ্ছে, আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছি। সব কষ্ট ভুলে গেছি।

 

শিশুটির বাবা কৃষক আবু সাঈদ ফারাজী বলেন, আমার সন্তানকে ফিরে পেয়েছি, এটাই শান্তি। তবে চুরির সঙ্গে যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান বাবা ফারাজী।

 

বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান সমন্বয়ক পুলিশ পরিদর্শক এসএম আশরাফুল আলম বলেন, শিশু চুরির খবর পাওয়ার পর থেকে পুলিশ অভিযান শুরু করে। পুলিশের কঠোর তৎপরতায় অপরাধীরা শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যায়। আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। চুরির সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত ও আইনের আওতায় আনতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।