চুয়াডাঙ্গা ০২:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ চুয়াডাঙ্গায় আন্ত‌জেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় ৬ সদস্য  আটক; চেতনা নাশক ঔষধ উদ্ধার দামুড়হুদার ডুগডুগি বাজারে বিট পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার ফয়জুর রহমান-অপরাধ দমনে পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন স্ত্রী‌কে সম্ভ্রমহা‌নি করার অপরা‌ধে ক‌বিরাজ‌কে জবাই ক‌রে হত্যা দামুড়হুদায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি টগর-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় জনগণের কথা চিন্তা করে দামুড়হুদায় মাশরুম চাষ সম্প্রসারণে মাঠ দিবসে সাবেক মহাপরিচালক ড. হামিদুর রহমান -চুয়াডাঙ্গার মাটি কৃষির ঘাটি দামুড়হুদায় জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা দামুড়হুদার আটকবর মোড়ে পূর্ববিরোধের জেরে ২জনকে কুপিয়ে, মারপিটে জখম করার অভিযোগ  দামুড়হুদার দুটি রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন কালে এমপি টগর -আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নমূখী সরকার দামুড়হুদায় বোরো ধান সংগ্রহের লটারী অনুষ্ঠিত 

যশোরে পরকীয়ার জেরে অ্যাসিড পুশ করে স্বামীকে হত্যা

যশোরে পরকীয়ার জেরে অভিনব কায়দায় স্বামীকে হত্যা করেছে স্ত্রী।স্বামীকে হত্যার পর হৃদরোগে মৃত্যু হয়েছে বলে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি ঘাতক স্ত্রী ও হত্যার পরিকল্পনাকারী প্রেমিকের। দুইজনকেই পৃথক অভিযানে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ও অ্যাসিড পুশ করে স্বামীকে হত্যা করেন স্ত্রী।নিহত জহির হাসান (৩৮) যশোর শহরের হুশতলার মৃত হোসেন আলীর ছেলে।

 

যশোর কোতয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ভিন্ন কৌশলে স্বামীকে হত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন শেফালি। বেসরকারি হাসপাতাল মাতৃসেবার আয়া শেফালির সাথে শহরের শংকরপুরের রবিউল সরদার নামে এক যুবকের পরকীয়া সম্পর্ক।

 

এ নিয়ে আগের দিন স্বামী জহিরের সাথে তার গোলযোগ হয়। পরদিন দুপুরে প্রথমে স্বামীর খাবারের সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দেন তিনি। ওষুধের প্রভাবে ঘুমিয়ে পড়ার পর ওই দিন সন্ধ্যার দিকে তার শরীরে ভিজিয়ে রাখা মোবাইল ফোনের ব্যাটারি থেকে নিসৃত অ্যাসিড সিরিঞ্জের মাধ্যমে পুশ করেন শেফালি। এ অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

 

গ্রেপ্তারের পর বিকেলে র‌্যাব-৬ যশোরের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার এম নাজিউর রহমান সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব ও পুলিশ জানায়, পরকীয়ার জেরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ তৈরি হয়। একপর্যায়ে পরিকল্পিতভাবে জহির হাসান গাজীকে হত্যা করা হয়। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মঙ্গলবার বিকেলে স্ত্রী শেফালী অভনব কায়দায় প্রথমে ঘুমের ওষুধ সেবন করিয়ে স্বামীকে অচেতন করেন। এরপর মোবাইলের ব্যাটারি থেকে সিরিঞ্জের মাধ্যমে এসিড বের করে স্বামীর শরীরে পুশ করেন। কিছু সময়ের মধ্যেই জহির মৃত্যুবরণ করেন। পরে স্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হয়েছে দাবি করে নাটক করেন স্ত্রী শেফালী।

 

এদিকে এ ঘটনায় নিহতের ভাই গাজী শাহনেওয়াজ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। গ্রেপ্তারের পর আসামিরা হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। যশোর ডিবি পুলিশ হত্যায় ব্যবহৃত মোবাইল ও মোবাইলের সেই ভাঙা ব্যাটারি, ইনজেকশনের সিরিঞ্জ, ঘুমের ওষুধ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

চুয়াডাঙ্গায় উন্নত ব্যবস্থাপনায় মাছ চাষের উপর প্রশিক্ষণ

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

যশোরে পরকীয়ার জেরে অ্যাসিড পুশ করে স্বামীকে হত্যা

প্রকাশ : ০৭:৪১:২০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩

যশোরে পরকীয়ার জেরে অভিনব কায়দায় স্বামীকে হত্যা করেছে স্ত্রী।স্বামীকে হত্যার পর হৃদরোগে মৃত্যু হয়েছে বলে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি ঘাতক স্ত্রী ও হত্যার পরিকল্পনাকারী প্রেমিকের। দুইজনকেই পৃথক অভিযানে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ও অ্যাসিড পুশ করে স্বামীকে হত্যা করেন স্ত্রী।নিহত জহির হাসান (৩৮) যশোর শহরের হুশতলার মৃত হোসেন আলীর ছেলে।

 

যশোর কোতয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ভিন্ন কৌশলে স্বামীকে হত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন শেফালি। বেসরকারি হাসপাতাল মাতৃসেবার আয়া শেফালির সাথে শহরের শংকরপুরের রবিউল সরদার নামে এক যুবকের পরকীয়া সম্পর্ক।

 

এ নিয়ে আগের দিন স্বামী জহিরের সাথে তার গোলযোগ হয়। পরদিন দুপুরে প্রথমে স্বামীর খাবারের সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দেন তিনি। ওষুধের প্রভাবে ঘুমিয়ে পড়ার পর ওই দিন সন্ধ্যার দিকে তার শরীরে ভিজিয়ে রাখা মোবাইল ফোনের ব্যাটারি থেকে নিসৃত অ্যাসিড সিরিঞ্জের মাধ্যমে পুশ করেন শেফালি। এ অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

 

গ্রেপ্তারের পর বিকেলে র‌্যাব-৬ যশোরের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার এম নাজিউর রহমান সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব ও পুলিশ জানায়, পরকীয়ার জেরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ তৈরি হয়। একপর্যায়ে পরিকল্পিতভাবে জহির হাসান গাজীকে হত্যা করা হয়। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মঙ্গলবার বিকেলে স্ত্রী শেফালী অভনব কায়দায় প্রথমে ঘুমের ওষুধ সেবন করিয়ে স্বামীকে অচেতন করেন। এরপর মোবাইলের ব্যাটারি থেকে সিরিঞ্জের মাধ্যমে এসিড বের করে স্বামীর শরীরে পুশ করেন। কিছু সময়ের মধ্যেই জহির মৃত্যুবরণ করেন। পরে স্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হয়েছে দাবি করে নাটক করেন স্ত্রী শেফালী।

 

এদিকে এ ঘটনায় নিহতের ভাই গাজী শাহনেওয়াজ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। গ্রেপ্তারের পর আসামিরা হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। যশোর ডিবি পুলিশ হত্যায় ব্যবহৃত মোবাইল ও মোবাইলের সেই ভাঙা ব্যাটারি, ইনজেকশনের সিরিঞ্জ, ঘুমের ওষুধ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে।